ফ্রিল্যান্সিং এর সমস্যা সমূহ

ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে আমাদের দেশে জোয়ার চলছে। অনেকেই ক্যারিয়ার শুরু করছে ফ্রিল্যান্সিং দিয়ে, অনেকে ফ্রিল্যান্সিং একটু ভালো করার কারণে পড়ালেখা ছেড়ে ফ্রিল্যান্সিং এ মনোযোগী হচ্ছে বেশি বা যাদের পড়ালেখা শেষ তারা অন্যকোন কিছু চেষ্টা না করে ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে পড়ে আছে। ফ্রিল্যান্সিং আপাতদৃষ্টিতে বেশ ভালো মনে হলেও দীর্ঘমেয়াদে এটি আপনার ধ্বংসের কারণ হতে পারে। বিশেষ করে যাদের কমপক্ষে আট-দশ বছরের চাকুরীর অভিজ্ঞতা নাই তাদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং দীর্ঘমেয়াদে ক্ষতিকর। কেন ক্ষতিকর সেটা অল্প কথায় বলা কঠিন, তাও কিছু বিষয় তুলে ধরছি-

প্রোগ্রামারদের ক্ষেত্রে একটা নির্দিষ্ট বয়সের পরে আপনি আর লেবার জব করতে পারবেন না। তখন আপনাকে হয় হাই লেভেল ডিজাইন অথবা ম্যানেজমেন্টে যেতে হবে। কিন্তু অভিজ্ঞতা না থাকার কারণে কোন কোম্পানীতে আপনি ম্যানেজম্যান্ট পোস্টগুলো পাবেন না। আর একা একা ফ্রিল্যান্সিং করার ফলে ততদিনে আপনার টীমওয়ার্ক করার ইচ্ছে মরে যাবে বা হুট করে টীমের সাথে মানাতে পারবেন না। আবার টীমওয়ার্কের অভিজ্ঞতা না থাকার ফলে নিজে কোন টীম পরিচালনাও করতে পারবেন না সহজে। ফ্রিল্যান্সিং এ যখন অনেক ভালো করতে শুরু করবেন তখন যে পরিমান টাকা পাবেন পরে এই টাকার পরিমানটা কমে আসতে শুরু করবে যেটা আপনার পক্ষে মেনে নেয়া কঠিন। আর এই টাকার পরিমানের জন্য আপনি সাধারন জবের প্রতিও আগ্রহী হতে পারবেন না বা কোম্পানীগুলো আপনাকে নিবে না (কারণ মাসে একবার আপনি লাখ খানেক টাকা কামানোর পর ২৫-৩০-৪০ হাজারে মনোযোগ দিয়ে কাজ করতে পারবেন না এটা কোম্পানীগুলোও জানে)।

এছাড়াও আরো যে সমস্যা আছে-

  • একা একা কাজ করে কাজের আগ্রহ ধরে রাখা কঠিন
  • রাত জেগে ক্রমাগত কাজ করারও একটা ইফেক্ট আছে
  • বাসায় বসে কাজ করার আরো বিশাল কিছু সমস্যা আছে, বিয়ের পর সেগুলো বুঝতে পারবেন
  • সামাজিক সমস্যা আছে কিছু যেগুলো হয়তো ধীরে ধীরে ঠিক হয়ে যাবে কিন্তু তার জন্য আরো পাঁচ/দশ বছর লাগতে পারে
  • ক্রমাগত রাত জেগে কাজ করার ফলে ব্রেইন ড্যামেজ হতে থাকে, আট-দশ বছর পর এটার জন্য খুব মারাত্বক সমস্যায় পড়বেন। কিছু মনে রাখতে পারবেন না। মানসিক সমস্যাও দেখা দিতে পারে।
  • ফ্রিল্যান্সিং এ কাজে স্ট্রেস অনেক বেশি, ক্রমাগত একজন মানুষের পক্ষে এই স্ট্রেস বেশিদিন নেয়া সম্ভব না

তাহলে কি ফ্রিল্যান্সিং পুরোপুরি ছেড়ে দিবেন? সেটাও না... কিছুদিন চাকুরী করুন, নিজের স্কিল বৃদ্ধি করুন। তারপর ধীরে ধীরে একটু একটু করে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। তবে পূর্নাঙ্গ ক্যারিয়ার হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং... কখনোই তা করতে বলবো না।

পূর্বে প্রকাশিত- Freelancer @ Bangladesh ফেসবুক গ্রুপে


Thoughts