আত্মপরিচয়

জার্মান লেখক প্যাট্রিক সাসকিন্ড (Patrick Süskind)-এর একটা নভেল আছে, পারফিউম (Das Parfum)। মানুষের আত্মপরিচয়ের গল্প নিয়া অসাধারণ একটা উপন্যাস। পৃথিবী কিসের মূল্য দেয় আর মানুষ কি চায় এই সংক্রান্ত ভাবনা সেই ছোটবেলা শেখ সাদীর দামী পোষাকেের পকেটে খাবার রাখার গল্প পড়ে শুরু হয়েছিলো। প্যাট্রিক সাসকিন্ড সেইটারে আরো পূর্নতা দিছেন। সেই পূর্নতার বোধ শেয়ার করার মত ভাষাজ্ঞান আমার এখনো হয় নাই বইলাই মনে হয়। তাই সে চেষ্টা আর করলাম না। তারচাইতে নিজের কিছু ভাবনা প্রকাশের চেষ্টা করি।

কিছু প্রশ্ন দিয়া শুরু করি। আচ্ছা, বিল গেটস বা জাকারবার্গরে আপনি কেন বড় ভাবেন? মানে তাদের এত পাত্তা দেন কেন? বিলিওনার বইলা? তাইলে, এইযে জাকারবার্গ তাঁর সম্পত্তি ৯৯% আর বিলগেটস ১০০% দান কইরা দিবো ঘোষণা দিলো, তারপরে আপনারা তাদের ক্যান পাত্তা দিবেন? জনপ্রিয় বইলা, না অন্য কিছু? অথবা ধরেন, হলিউড বা বলিউডের একজন নায়ক/নায়িকারে কেন পাত্তা দেন? একজন লেখকরে কেন পাত্তা দেন? অথবা ধরেন, পাড়ার "সুন্দরী" মেয়েটারেই বা কেন পাত্তা দেন? (উল্লেখ্য, সুন্দরী কনসেপ্টটা নিয়া আমার আপত্তি আছে। প্রচলিত অর্থে ব্যবহার করছি এইখানে।) তাইলে, এই যে আপনি একজন পয়সাওয়ালা, ক্ষমতাওয়ালা, জনপ্রিয় বা সুন্দরীরে পাত্তা দিলেন, এতে আসলে কারে পাত্তা দেয়া হইলো? ঐ ব্যক্তিরে না ওদের প্রোপার্টিরে? ব্যক্তি আর তার প্রোপার্টি কিন্তু আলাদা। একজন পয়সাওয়ালা মানুষের প্রোপার্টি যেমন তার পয়সা তেমনি একজন সুন্দরীর প্রোপার্টি হইতেছে তার সৌন্দর্য কিংবা একজন জনপ্রিয় মানুষের প্রোপার্টি তার জনপ্রিয়তা। প্যাট্রিক সাসকিন্ডের ভাষায় যদি কইতে চাই তাইলে 'পারফিউম' কইতে পারি। আপনের নিজের কোন গন্ধ নাই বইলা দুনিয়া থিকা গন্ধ বানানির সমস্ত ফর্মূলা আয়ত্ব কইরা গন্ধ অর্জন করছেন যেইটায় সবাই বিমোহীত হইতেছে। কিন্তু সেইটা তো আসলে আপনার নিজের গন্ধ না। আপনের নিজের পরিচয় না।

তাইলে আপনের নিজের গন্ধ বা পরিচয় ক্যামনে হইবো? আত্মপরিচয় ব্যপারটা আসলে কী? এই বিষয়ে আরেকদিন লিখুমনে। চাইলে আপনাদের ভাবনা জানাইতে পারেন।


Thoughts