তাতিনের ডিকশনারী

তাতিন এসে বললো- বাবা, কানতেছি।
কেন কানতেছ?
আম্মু বকা দেয়।

তাতিনের যখন মন খারাপ হয় তখন সে 'কানতেছি' বলে সেইটা প্রকাশ করে। এই শব্দ সে কিভাবে আবিষ্কার করলো বা এভাবে মনের ভাব প্রকাশ করার ব্যপারটা কিভাবে তার মাথায় আসলো সেটা এক রহস্য। এধরনের আরো মজার কিছু শব্দ সে আবিষ্কার করেছে। এই যেমন, আমি যখন কাজ করি তখন যদি ওর আম্মু জিজ্ঞেস করে- দেখ তো বাবা কী করে... সে বলবে- কাজতেছে (মানে কাজ করতেছে)। গোছল করার জন্য পানির টাবে বসে বলে- ফানতেছি (মানে, ফান করতেছি)। এধরনের আরো কিছু শব্দ সে তৈরি করে নিয়েছে। আমি ঠিক করেছি এই শব্দগুলোকে হারিয়ে যেতে দেব না। উপন্যাস, গল্প এবং মজার লেখালেখিতে এগুলো ব্যবহার শুরু করবো। আর আমাদের বাপ-বেটির কখপোকথনে তো ব্যবহার করবোই। তাতে ব্যকরণের কোন সমস্যা হলে হোক। হাঁস ছিলো সজারু, ব্যকারন মানি না। হয়ে গেল হাঁসজারু, কেমনে তা জানি না। হাঁসজারু হোক কিছু।


Thoughts