উচিত কথা

আমাদের সমাজে 'উচিত কথা' নামে একটা ব্যপার রয়েছে। এই 'উচিত কথা' জিনিষটাকে আমার কাছে নেতিবাচক মনে হয়। এই শব্দটার ভেতরে একটা আত্মতৃপ্তির গন্ধ আছে। মানে, যারা 'উচিত কথা' নামক ব্যপারটা বেশী বেশী বলে তারা এটা করে এক ধরনের আত্মতৃপ্তি পায়। যারা খুব গর্ব করে বলে থাকে যে- 'উচিত কথা' বলতে সে কখনো ছাড়ে না, তাদের মন-মানসিকতা একটু ভালো করে খেয়াল করলেই আপনি বুঝতে পারবেন ব্যপারটা।

এই 'উচিত কথা' বলার কারণে যাদের কোন বন্ধু থাকে না তারা ভাবে অন্যরা বুঝি সত্য গ্রহন করতে পারতেছে না। বস্তুত ব্যপারটা এরকম না। মানুষের প্রতি যদি আপনার মমতা থাকে তাহলে সহজেই ক্ষমাশীল হতে পারবেন। তখন কেউ ভুল কিছু করছে বা বলছে দেখলেও সরাসরি সেটার বিরুদ্ধে গিয়ে 'উচিত কথা' নামক তীর ছুড়ে মারবেন না। সেক্ষেত্রে প্রথমে আপনি তাদের ক্ষমা করে দিবেন, তাদের প্রতি সহানুভূতি অনুভব করতেন। তারপর ভাববেন— কি করলে বা কিভাবে বললে ওরা এর ক্ষতির দিকটা বুঝতে পারবে, এর থেকে বিরত হবে। এবং সেই অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়ার কথা ভাববেন। অনেক সময় সেই পদক্ষেপ হতো সরাসরি বিরুদ্ধে না যাওয়া বা তথাকথিত 'উচিত কথা' থেকে বিরত হওয়া। কারন, ঐ 'উচিত কথা' ব্যপাটার কতটুকু সমাধান আনবে সেটাকে আপনি বেশী গুরুত্ব দিচ্ছেন।


Thoughts